আসছে পারমাণবিক ব্যাটারি – ৫০ বছর চলবে ফোন চার্জ ছাড়াই!

রেটিং দিন

চীনের পারমাণবিক ব্যাটারি

কে তাদের মোবাইল ফোন একাধিকবার চার্জ করতে পছন্দ করে? পারমাণবিক ব্যাটারি, তবে এই দুশ্চিন্তা অচিরেই কেটে যাবে। চীনা প্রযুক্তি কোম্পানি বেটা ভোল্ট নতুন ধরনের ব্যাটারি বাজারে আনবে। তাদের দাবি, এই ব্যাটারি রিচার্জ ছাড়াই ৫০ বছর ব্যবহার করা যাবে।

বেটাভোল্ট বলে যে তার পারমাণবিক ব্যাটারি একটি মুদ্রার চেয়ে ছোট একটি মডিউলে 63 টি আইসোটোপ প্যাক করে।

কোম্পানির মতে, পরবর্তী প্রজন্মের ব্যাটারি বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। শিগগিরই এটি বাণিজ্যিকীকরণ করা হবে। স্মার্টফোন ছাড়াও, বিটভোল্ট পারমাণবিক শক্তির ব্যাটারিগুলি মহাকাশযান, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ডিভাইস, মেডিকেল ডিভাইস, মাইক্রোপ্রসেসর, উন্নত সেন্সর, ছোট ড্রোন এবং মাইক্রো-রোবটের মতো ডিভাইসেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

নিরাপত্তার দিক থেকে এই ব্যাটারিটি প্রচলিত ব্যাটারির থেকে উল্লেখযোগ্যভাবে এগিয়ে। এটা আলোকিত হবে না. প্রচলিত ব্যাটারি উচ্চ তাপমাত্রায় নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করে। পারমাণবিক শক্তি ব্যবহার করা হলেও তেজস্ক্রিয়তার কোনো ঝুঁকি নেই। পেসমেকার কি ব্যবহার করা যেতে পারে

পারমাণবিক ব্যাটারি কিভাবে কাজ করে?

পারমাণবিক ব্যাটারি হল এমন একটি ব্যাটারি যা পারমাণবিক বিভাজন বা ক্ষয়ের মাধ্যমে শক্তি উৎপন্ন করে। পারমাণবিক বিভাজনে, একটি ভারী পরমাণু দুটি হালকা পরমাণুতে বিভক্ত হয়, যার ফলে প্রচুর পরিমাণে শক্তি নির্গত হয়। পারমাণবিক ক্ষয়ে, একটি পরমাণুর নিউক্লিয়াস একটি ইলেকট্রন বা প্রোটন নির্গত করে, যার ফলে শক্তি নির্গত হয়।

পারমাণবিক ব্যাটারির দুটি প্রধান ধরন হল থার্মিয়োনিক রূপান্তর ব্যাটারি এবং রেডিওভোল্টাইক ব্যাটারি।

থার্মিয়োনিক রূপান্তর ব্যাটারি

থার্মিয়োনিক রূপান্তর ব্যাটারিতে, একটি গরম তড়িৎদ্বার (ক্যাথোড) তাপীয়ভাবে ইলেকট্রন নির্গত করে। এই ইলেকট্রনগুলি একটি শীতল তড়িৎদ্বার (অ্যানোড) দ্বারা আকর্ষিত হয়, যার ফলে একটি বৈদ্যুতিক প্রবাহ তৈরি হয়।

থার্মিয়োনিক রূপান্তর ব্যাটারিতে ব্যবহৃত সাধারণ রেডিওআইসোটোপ হল পোলোনিয়াম-210 এবং স্ট্রোনশিয়াম-90। এই আইসোটোপগুলি উচ্চ তাপমাত্রায় বিভক্ত হয়, যার ফলে ক্যাথোডকে গরম করতে যথেষ্ট শক্তি উৎপন্ন হয়।

রেডিওভোল্টাইক ব্যাটারি

রেডিওভোল্টাইক ব্যাটারি হল এমন একটি ডিভাইস যা আয়োনাইজিং রেডিয়েশনের শক্তিকে সরাসরি বিদ্যুতে রূপান্তর করে। এই ডিভাইসগুলিতে সাধারণত একটি অর্ধপরিবাহী ডায়োড থাকে যা আয়োনাইজিং রেডিয়েশনের দ্বারা উৎপন্ন ইলেকট্রন এবং গর্তের প্রবাহকে পরিচালনা করে।

রেডিওভোল্টাইক ব্যাটারিগুলিতে ব্যবহৃত সাধারণ রেডিওআইসোটোপ হল পোলোনিয়াম-210, স্ট্রোনশিয়াম-90 এবং রুথেনিয়াম-106। এই আইসোটোপগুলি বিভিন্ন ধরণের আয়োনাইজিং রেডিয়েশন নির্গত করে, যার মধ্যে রয়েছে আলফা কণা, বিটা কণা এবং গামা রশ্মি।

পারমাণবিক ব্যাটারির বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। প্রথমত, তারা প্রচুর পরিমাণে শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। দ্বিতীয়ত, তারা দীর্ঘস্থায়ী হয়। তৃতীয়ত, তারা পরিবেশবান্ধব।

তবে পারমাণবিক ব্যাটারির কিছু অসুবিধাও রয়েছে। প্রথমত, তারা উৎপাদন করা ব্যয়বহুল। দ্বিতীয়ত, তারা বিপজ্জনক হতে পারে, কারণ তারা রেডিয়েশন নির্গত করে।

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির সম্ভাব্য অ্যাপ্লিকেশনগুলির মধ্যে রয়েছে:

মহাকাশযানের শক্তি সরবরাহ, কৃত্রিম উপগ্রহের শক্তি সরবরাহ, সামরিক সরঞ্জামের শক্তি সরবরাহ, স্থায়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ, পারমাণবিক ব্যাটারির গবেষণা চলমান, এবং এই প্রযুক্তির উন্নতি অব্যাহত রয়েছে।

পারমাণবিক ব্যাটারি চার্জ হতে কত সময় লাগে?

পারমাণবিক ব্যাটারি চার্জ হতে সময় লাগে না। পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিতে ব্যবহৃত রেডিওআইসোটোপগুলি স্ব-শক্তিসম্পন্ন, যার অর্থ তারা নিজেদের থেকে শক্তি উৎপন্ন করে। সুতরাং, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিকে চার্জ করার জন্য কোনও বাহ্যিক উৎস থেকে শক্তি প্রয়োজন হয় না।

তবে, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির ক্ষয়ের হার পরিবর্তিত হতে পারে। কিছু রেডিওআইসোটোপগুলির ক্ষয়ের হার অত্যন্ত ধীর, যার অর্থ তারা শত শত বা এমনকি হাজার হাজার বছর ধরে শক্তি উৎপন্ন করতে পারে। অন্যান্য রেডিওআইসোটোপগুলির ক্ষয়ের হার দ্রুততর, যার অর্থ তারা শতাব্দী বা এমনকি দশকের মধ্যে তাদের শক্তি হারাতে পারে।

সাধারণভাবে, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির গড় আয়ুষ্কাল 50 থেকে 100 বছর। এর মানে হল যে তারা দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারে।

পারমাণবিক ব্যাটারির চার্জের ধারণাটি কিছুটা বিভ্রান্তিকর হতে পারে। পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিকে চার্জ করার প্রয়োজন হয় না, তবে তাদের ক্ষয়ের হার পরিবর্তিত হতে পারে। এটি ব্যাটারির শক্তি ধারণক্ষমতা এবং কতক্ষণ ধরে এটি বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারে তার উপর প্রভাব ফেলতে পারে।

চীনের পারমাণবিক ব্যাটারিতে এক চার্জে ফোন চলবে ৫০ বছর | The Daily Star Bangla

পারমাণবিক ব্যাটারি দাম কত হতে পারে?

পারমাণবিক ব্যাটারির দাম বেশ পরিবর্তনশীল হতে পারে। এটি ব্যাটারির আকার, শক্তি ধারণক্ষমতা, এবং ব্যবহৃত রেডিওআইসোটোপের উপর নির্ভর করে।

বর্তমানে, পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় এখনও উচ্চ। একটি ছোট পারমাণবিক ব্যাটারির দাম প্রায় $100,000 হতে পারে। একটি বড় পারমাণবিক ব্যাটারির দাম প্রায় $1 মিলিয়ন হতে পারে।

তবে, পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় ক্রমাগত কমছে। গবেষণা ও উন্নয়ন অব্যাহত থাকার সাথে সাথে, পারমাণবিক ব্যাটারির দাম আরও কমে যেতে পারে।

পারমাণবিক ব্যাটারির সম্ভাব্য অ্যাপ্লিকেশনগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • মহাকাশযানের শক্তি সরবরাহ
  • কৃত্রিম উপগ্রহের শক্তি সরবরাহ
  • সামরিক সরঞ্জামের শক্তি সরবরাহ
  • স্থায়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ

এই অ্যাপ্লিকেশনগুলিতে পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির চাহিদা বৃদ্ধির সাথে সাথে, পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় আরও কমে যেতে পারে।

উদাহরণস্বরূপ, চীনের একটি কোম্পানি, বেটাভোল্ট, দাবি করেছে যে তারা ২০২৫ সালের মধ্যে $100 এরও কম দামে পারমাণবিক ব্যাটারি তৈরি করতে সক্ষম হবে।

সামগ্রিকভাবে, পারমাণবিক ব্যাটারির দাম এখনও উচ্চ, তবে এটি ক্রমাগত কমছে। গবেষণা ও উন্নয়ন অব্যাহত থাকার সাথে সাথে, পারমাণবিক ব্যাটারির দাম আরও কমে যেতে পারে, যার ফলে এই প্রযুক্তির আরও ব্যাপক ব্যবহারের সম্ভাবনা তৈরি হবে।

পারমাণবিক ব্যাটারির অসুবিধা

পারমাণবিক ব্যাটারির বেশ কিছু অসুবিধা রয়েছে। প্রথমত, তারা উৎপাদন করা ব্যয়বহুল। দ্বিতীয়ত, তারা বিপজ্জনক হতে পারে, কারণ তারা রেডিয়েশন নির্গত করে।

উৎপাদন ব্যয়

পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় এখনও উচ্চ। এটি ব্যাটারির আকার, শক্তি ধারণক্ষমতা, এবং ব্যবহৃত রেডিওআইসোটোপের উপর নির্ভর করে।

বর্তমানে, পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় প্রায় $100,000 থেকে $1 মিলিয়ন প্রতি ব্যাটারি। এই ব্যয়টি ঐতিহ্যবাহী রাসায়নিক ব্যাটারির তুলনায় অনেক বেশি।

গবেষণা ও উন্নয়ন অব্যাহত থাকার সাথে সাথে, পারমাণবিক ব্যাটারির উৎপাদন ব্যয় আরও কমে যেতে পারে। তবে, এটি এখনও একটি উল্লেখযোগ্য অসুবিধা।

রেডিয়েশনের ঝুঁকি

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলি রেডিয়েশন নির্গত করে, যা ক্ষতিকারক হতে পারে। যদি পারমাণবিক ব্যাটারি ত্রুটিযুক্ত হয় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহলে এটি রেডিয়েশনের ফাঁস ঘটাতে পারে।

রেডিয়েশনের ফাঁস থেকে মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকি রয়েছে। এটি ক্যান্সার, জন্মগত ত্রুটি এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

পারমাণবিক ব্যাটারির নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রয়োজন। তবে, এই ব্যবস্থাগুলির ব্যয়ও বাড়তে পারে।

অন্যান্য অসুবিধা

পারমাণবিক ব্যাটারির অন্যান্য কিছু অসুবিধাও রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিকে বিশেষভাবে ডিজাইন এবং নির্মাণ করা প্রয়োজন। এটি আরও ব্যয় এবং জটিলতা যোগ করতে পারে।

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির পরিবেশগত প্রভাবও অজানা। রেডিয়েশনের ফাঁস থেকে পরিবেশের ক্ষতির ঝুঁকি রয়েছে।

সামগ্রিকভাবে, পারমাণবিক ব্যাটারির বেশ কিছু অসুবিধা রয়েছে। এই অসুবিধাগুলি কাটিয়ে ওঠার জন্য আরও গবেষণা ও উন্নয়ন প্রয়োজন।

পারমাণবিক ব্যাটারির সুবিধা

পারমাণবিক ব্যাটারির বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। প্রথমত, তারা প্রচুর পরিমাণে শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। দ্বিতীয়ত, তারা দীর্ঘস্থায়ী হয়। তৃতীয়ত, তারা পরিবেশবান্ধব।

শক্তি ধারণক্ষমতা

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলি প্রচুর পরিমাণে শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। একটি ছোট পারমাণবিক ব্যাটারি একটি বড় লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির চেয়ে অনেক বেশি শক্তি সঞ্চয় করতে পারে।

এর অর্থ হল পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিকে দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলি মহাকাশযানের জন্য আদর্শ, যেখানে দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রয়োজন হয়।

দীর্ঘস্থায়িত্ব

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলি দীর্ঘস্থায়ী হয়। একটি পারমাণবিক ব্যাটারির গড় আয়ুষ্কাল 50 থেকে 100 বছর। এর মানে হল যে তারা দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারে।

এর অর্থ হল পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিকে একবার ইনস্টল করা হলে, তাদের পুনরায় প্রতিস্থাপন করার প্রয়োজন হয় না। এটি দীর্ঘমেয়াদী খরচ কমাতে সাহায্য করে।

পরিবেশবান্ধবতা

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলি পরিবেশবান্ধব। তারা জীবাশ্ম জ্বালানির উপর নির্ভর করে না, যা পরিবেশ দূষণের একটি প্রধান কারণ।

পারমাণবিক ব্যাটারিগুলিতে ব্যবহৃত রেডিয়োআইসোটোপগুলিও টেকসই। তারা প্রাকৃতিকভাবে ঘটে এবং পরিবেশে দীর্ঘ সময় ধরে থাকে।

সামগ্রিকভাবে, পারমাণবিক ব্যাটারির বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। তারা প্রচুর পরিমাণে শক্তি সঞ্চয় করতে পারে, দীর্ঘস্থায়ী হয় এবং পরিবেশবান্ধব। এই সুবিধাগুলির কারণে, পারমাণবিক ব্যাটারিগুলির জন্য বেশ কিছু সম্ভাব্য অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে।