বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি

5/5 - (1 vote)

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি তা নিয়ে আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আপনি যদি বাংলাদেশ সরকারের অধীনে কতটি সরকারি ব্যাংক রয়েছে এবং কতটি ব্যাংক তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করছে জানতে ইচ্ছুক হন, তবে এই পোস্টটি আপনার জন্যই।

কারণ, আজ আপনাদের সাথে বাংলাদেশের সরকারি ব্যাংক সম্পর্কে সকল তথ্য বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো চলুন, পোস্টের মূল বিষয়ে ফিরে আসা যাক।

সরকারি ব্যাংক কি?

বাংলাদেশ সরকারের অধীনে যেসব ব্যাংক তৈরি এবং পরিচালিত হয়ে থাকে, সেগুলোই হচ্ছে সরকারি ব্যাংক। সরকারি ব্যাংকগুলোতে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়ে থাকে। এছাড়াও, যে ব্যাংকে ৫১% এর বেশি সরকারি শেয়ার বা মালিকানা থাকে, সেগুলোই হচ্ছে সরকারি ব্যাংক।

পৃথিবীর প্রতিটি দেশেই সরকারি ব্যাংক রয়েছে। তেমনি, আমাদের বাংলাদেশেও সরকারি ব্যাংক রয়েছে। বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি তা অনেকেই জানেন না। তো চলুন, জেনে নেয়া যাক।

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি

বাংলাদেশে মোট ৬টি সরকারি ব্যাংক রয়েছে। এসব ব্যাংক বাংলাদেশ সরকারের অধীনে গঠিত এবং পরিচালিত হয়ে থাকে। বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক “বাংলাদেশ ব্যাংক” এসব সরকারি ব্যাংককে পরিচালনা করে থাকে। সরকারি ব্যাংকগুলো সরকারের হয়ে ব্যাংকিং কার্যক্রম এবং বাণিজ্য কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

বাংলাদেশে ৬টি সরকারি ব্যাংক কি কি তার একটি তালিকা নিচে উল্লেখ করে দিয়েছি। চলুন, জেনে নেয়া যাক।

  1. সোনালী ব্যাংক লিমিডেট
  2. বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক
  3. রূপালী ব্যাংক লিমিটেড
  4. অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড
  5. বেসিক ব্যাংক লিমিটেড
  6. জনতা ব্যাংক লিমিটেড

উপরের তালিকায় উল্লিখিত ৬টি ব্যাংক বাংলাদেশ সরকারের অধীনে গঠিত এবং পরিচালিত বানিজ্যিক ব্যাংক। এই ব্যাংকগুলো সরকারের অধীনে তাদের বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। উপরোক্ত ৬টি ব্যাংক সম্পর্কে আরও বিস্তারিত তথ্য নিচে আলোচনা করেছি। চলুন, জেনে নেয়া যাক।

সোনালি ব্যাংক লিমিটেড

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি

সোনালী ব্যাংক লিমিটেড (এসবিএল) বাংলাদেশের বৃহত্তম রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক। ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ ব্যাংক (ন্যাশনালাইজেশন) আদেশের অধীনে ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, ব্যাংক অব বাহ্ওয়ালপুর এবং প্রিমিয়ার ব্যাংককে একীভূত করে সোনালী ব্যাংক প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ব্যাংক এর পরে সরকারি ব্যাংক হিসেবে সোনালি ব্যাংক বহুল জনপ্রিয় একটি ব্যাংক।

📌 আরো পড়ুন 👇

সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঢাকার মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত। বাংলাদেশের ৯টি বিভাগীয় শহরে এবং ৬৪টি জেলায় সোনালি ব্যাংকের মোট ১,২২৮টি শাখা রয়েছে। ব্যাংকটি ডিজিটাল ব্যাংকিং পরিষেবায়ও অগ্রগামী, যার মধ্যে রয়েছে সোনালী ই-ওয়ালেট, সোনালী ই-সেবা এবং সোনালী এজেন্ট ব্যাংকিং।

সোনালী ব্যাংক বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। এটি দেশের কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য এবং অবকাঠামো খাতে ঋণ প্রদান করে থাকে। সরকারী খাতেও সোনালি ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। যেমন সরকারি ব্যয় পরিচালনা এবং রাজস্ব আদায় ইত্যাদি।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক (বিকেবি) বাংলাদেশের একটি রাষ্ট্র মালিকানাধীন বিশেষায়িত ব্যাংক। এটি ১৯৭৩ সালের ৩১ মার্চ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বিকেবির প্রধান কার্যালয় ঢাকায় অবস্থিত। বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় বাংলদেশ কৃষি ব্যাংকের মোট ১,০৩৮টি শাখা রয়েছে।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের প্রধান লক্ষ্য হল বাংলাদেশের কৃষি খাতকে অর্থায়ন করা। ব্যাংকটি কৃষকদের জন্য ঋণ, সঞ্চয় প্রকল্প এবং অন্যান্য আর্থিক সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে। বিকেবির ঋণ কৃষি উৎপাদন, কৃষি সরঞ্জাম ও যন্ত্রপাতি ক্রয়, কৃষিভিত্তিক ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষিভিত্তিক শিল্প ও অবকাঠামো উন্নয়ন এবং অন্যান্য কৃষিভিত্তিক উদ্যোগে ব্যবহৃত হয়।

বিকেবি বাংলাদেশের কৃষি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে অনেক বছর যাবত। ব্যাংকটি কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, কৃষকদের আয় বৃদ্ধি এবং গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নে সহায়তা করে থাকে।

রূপালী ব্যাংক লিমিটেড

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি

রূপালী ব্যাংক লিমিটেড (আরবিএল) বাংলাদেশের একটি রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক। এটি ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ ব্যাংকের আদেশে তিনটি বাণিজ্যিক ব্যাংক, মুসলিম কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড, অস্ট্রেলেশিয়া ব্যাংক লিমিটেড এবং স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেডকে একীভূত করে প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিল।

রূপালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঢাকার দিলকুশায় অবস্থিত। বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় সোনালি ব্যাংকের মোট ৫৮৭টি শাখা রয়েছে। ব্যাংকটি ডিজিটাল ব্যাংকিং সেক্টরেও অনেক অগ্রগামি। যার মধ্যে রয়েছে রূপালী ই-ওয়ালেট, রূপালী ই-শেবা এবং রূপালী এজেন্ট ব্যাংকিং।

রূপালী ব্যাংক বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। এটি আমাদের দেশের কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য এবং অবকাঠামো খাতে ঋণ প্রদান করে থাকে। সোনালি ব্যাংক সরকারী খাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। যেমন: সরকারি ব্যয় পরিচালনা এবং রাজস্ব আদায় ইত্যাদি।

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক। এটি ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ ব্যাংক (জাতীয়করণ) আদেশের অধীনে হাবিব ব্যাংক লিমিটেড এবং কমার্স ব্যাংক লিমিটেডকে একীভূত করে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঢাকার মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত। অগ্রণী ব্যাংকটি বাংলাদেশের ৯টি বিভাগীয় শহরে এবং ৬৪টি জেলায় মোট ১,২৪৫টি শাখা পরিচালনা করে আসছে। ব্যাংকটি ডিজিটাল ব্যাংকিং পরিষেবায় অগ্রণী ই-ওয়ালেট, অগ্রণী ই-শেবা এবং অগ্রণী এজেন্ট ব্যাংকিং সুবিধা প্রদান করে থাকে।

অগ্রণী ব্যাংক বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। দেশের কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য এবং অবকাঠামো খাতে ঋণ প্রদান করে থাকে এই ব্যাংকটি। এটি সরকারী খাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যেমন সরকারি ব্যয় পরিচালনা এবং রাজস্ব আদায়।

বেসিক ব্যাংক লিমিটেড

বেসিক ব্যাংক লিমিটেড বাংলাদেশের একটি রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক। এটি ১৯৮৮ সালের কোম্পানি আইনের অধীনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বেসিক ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঢাকার মতিঝিলের সেনা কল্যাণ ভবনে অবস্থিত।

বেসিক ব্যাংকের প্রধান লক্ষ্য হল বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতে অর্থায়ন করে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখা। ব্যাংকটি এসএমই খাতে ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি এবং এসএমই উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য কাজ করে আসছে।

জনতা ব্যাংক লিমিটেড

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি

জনতা ব্যাংক লিমিটেড বাংলাদেশের একটি রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক। এটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্যিক ব্যাংক। ব্যাংকটির অনুমোদিত মূলধন ৩০,০০০ মিলিয়ন টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ২৩,১৪০ মিলিয়ন টাকা। 

📌 আরো পড়ুন 👇

ব্যাংকটি স্বাধীনতার পরে ইউনাইটেড ব্যাংক লিমিটেড ও দি নোয়াখালী ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেডের (১৯৪৯ সালে দেউলিয়া ঘোষিত) এ দেশীয় শাখা সমুহের সম্পদ নিয়ে গঠিত হয়েছিল। ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয় ঢাকার মতিঝিলে এটির নিজস্ব ২৪ তলা বিশিষ্ট জনতা ব্যাংক ভবনে অবস্থিত।

সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি – প্রশ্ন‌উত্তর

বাংলদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি?

বাংলাদেশে মোট ৬টি সরকারি ব্যাংক রয়েছে। 

বাংলাদেশের সরকারি ব্যাংক গুলো কি কি?

বাংলাদেশের সরকারি ব্যাংকগুলো হচ্ছে সোনালী ব্যাংক লিমিডেট, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, বেসিক ব্যাংক লিমিটেড এবং জনতা ব্যাংক লিমিটেড।

বাংলাদেশ ব্যাংক এর কাজ কি?

বাংলাদেশ ব্যাংক হচ্ছে আমাদের দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংক মুদ্রানীতি ও ঋণনীতি প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন, দেশের বৈদেশিক রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা, আর্থিক বাজারের প্রসার ও উন্নয়ন ইত্যাদি কাজ করে থাকে।

বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি ২০২৩?

বাংলাদেশে মোট সরকারি ব্যাংক রয়েছে ৬টি। এগুলো হচ্ছে : সোনালি ব্যাংক, রুপালি ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক।

সরকারি ব্যাংক সম্পর্কে আমাদের মতামত

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি এই বিষয়ে আলোচনা করেছি। বাংলাদেশে অবস্থিত ৬টি সরকারি ব্যাংকের নাম এবং এগুলো সম্পর্কে কিছু তথ্য উল্লেখ করে দিয়েছি এই পোস্টে। পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়লে বাংলাদেশে সরকারি ব্যাংক কয়টি ও কি কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

এছাড়াও, আরও কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই মন্তব্য করবেন। আমরা আপনার প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো। এতক্ষন প্রযুক্তির বাংলা ব্লগের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।